অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে বা ওপিজি কি?

অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে বা ওপিজি কি? কিভাবে এর সংযোগ নিতে হয় ও ব্যবহার করতে হয়।

যে গেটওয়ে বা পদ্ধতি ব্যবহার করে অনলাইন পেমেন্ট প্রসেসটি সঠিকভাবে সম্পন্ন করা হয় তাকে বলা হয়। অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে।  আমরা জানি যে, প্রতিটি লেনদেন এর দুটো পক্ষ থাকে। দাতা গ্রহীতা। আমরা যখন নগদটাকা লেদেন করি তখন হাতে হাতে টাকা দেই বলে কোনো মাধ্যম লাগে না। কিন্তু যখন অনলাইনে ভার্চুয়াল লেনদেন হয় তখন সেখানে এমন একটি সিস্টেম প্রয়োজন হয়। যে সিস্টেমটি ক্রেতা গ্রহীতার মাঝে লেনদেনটি সম্পন্ন হওয়ার জন্য প্রযুক্তিগত কাজটা করা থাকে। অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ের মাধ্যমে কাস্টসার পন্যের মূল্য প্রদান করলে সে মূল্য অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে মাধ্যম হয়ে ক্রেতার কাছে চলে ৈযায়। 

কিভাবে এই অনলাইন গেটওয়ে কাজ করে এবং এটা একজন  অনলাইন মার্চেন্ট এর জন্য কেন প্রয়োজন এই বিষয়ে আমরা আজ আলোচনা করব।

 উন্নত বিশ্বে সকল প্রকার কেনাবেচা আজকাল অনলাইনে এবং কার্ডের মাধ্যমে হচ্ছে। ক্রেতারা যেমনি অনলাইনে পে করতে অভ্যস্ত, তেমনি মার্চেন্টরাও অনলাইনে অর্থ গ্রহণ করতে স্বাচ্ছন্দ বোধ করে। অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ের প্লাগইন সিস্টেমটি তাদের নিজের ওয়েবসােইট ছাড়াও আরো দুটি পক্ষের সাথে যুক্ত থাকে। একদিকে এটি  কমার্স

ওয়েব সাইটের সাথে সংযুক্ত থাকে অন্যদিকে থাকে ব্যাংকের অনলাইন সিস্টেমের সাথে যুক্ত। যখন  একজন ভোক্তা কোনো কমার্স  শপ থেকে পন্য পছন্দ করে এবং পেমেন্ট মুডে যান। তখন তার জন্য বিভিন্ন অপশন আছে। আার তিনি কার্ডে  পেমেন্ট অপশন বাছাই করার সাথে সাথে সিস্টেটম তার কাছে কাডের তথ্য চায়। তিনি সঠিক তথ্য দিলে লেনদেনটি সম্পন্ন হয় এবং ভোক্তার একান্ট হতে টাকা প্রথমে পেমেন্ট গেটওয়েতে যায়। পরে সেটা বিক্রেতা পেয়ে থাকেন। 
দেশের পেমেন্ট গেটওয়ে

বাংলাদেশে পেমেন্ট গেটওয়ে সার্র্ভিসের সাথে বহি: বিশ্বের সাথে কিছু পার্থক্য দূরত্ব রয়েছে। অন্য কোনো দেশের অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়েতে বাংলাদেশি কার্ড কাজ করেনা। এতে বাংলাদেশ ব্যাংকের বাধা বিপত্তি রয়েছে। বাংলাদেশের এবং দেশের বাইরের কার্ড এদেশের অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়েতে কাজ করতে হলে লোকাল অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সার্ভিস নিতে হবে। তখন পে করা অর্থ মার্চেণ্ট হিসেবে আপনার ব্যাংকের বিজনেস অ্যাকাউন্টে জমা হবে। সাধারণত দেশী অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়েতে দেশি বিদেশি সব ভিসা মাস্টার কার্ড কাজ করে।

অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সেবা পেতে
আপনি একজন ব্যবসায়ী বা উদ্যাক্তা হিসেবে বিদ্যমান আ্ইনের আওতায় অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সেবা নেয়ার জন্য সর্ব প্রথম ব্যবসায়ী হিসেবে ট্রেড লাইসেন্স থাকতে হবে অথবা আপনার থাকতে পারে একটি সমাজকল্যাণ অধিদপ্তরের সনদ যদি আপনি সেচ্ছাসেবি সংগঠনের জন্য এই সেবা নিতে চান।

আপনার থাকতে পারে লিমিটেড কোম্পানি হিসেবে জয়েন্ট স্টক নিবন্ধণ, সাথে দরকার জাতীয় পরিচয় পত্র, টিআইএন সনদ এবং একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট যা আপনার ফার্মের নামে হবে।পেমেন্ট গেটওয়ে সেবা একটিভেট করতে আপনি শুধু অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সেবা পাওয়ার যোগ্যতা অর্জণ করলেই হবে না। এই সেবাটি এক্টিভেট করতে আপনার প্রয়োজন হবে কিছু প্রযুক্তিগত সক্ষমতা। মার্চেণ্টদের অনলাইন শপ বা কামর্স সাইটের সিস্টেম এর সাথে অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে ইন্টিগ্রেট করার জন্য আপনি যে কোম্পানী থেকে পেমেন্ট গেটওয়ে সেবা নিবেন তারা আপনাকে সাহায্য করবে। অথবা তাদের সাথে আপনি আপনার ওয়েব ডেভেলপারকে সম্পৃক্ত করেও সার্ভিস একটিভ করতে পারেন।

মার্চেণ্ট একাউন্টে টাকা স্থানান্তর
সপ্তাহে একবার , দুইবার পেমেন্ট করে থাকে। অনলাইন পেমেন্টগেটওয়ে কোম্পানী আপনাকে পেমেন্ট করবে। তবে সে টাকা তারা আপনাকে ক্যাশ বা অন্য কোনো ভাবে দেবেনা। এই টাকা সরাসরি আপনার বিজনেস একউন্টে জমা হবে। তবে পেমেন্ট গেটওয়ে কোম্পানী আপনাকে লেনদের সামারি বা তথ্যসমূহ প্রদান করবে। সেক্ষেত্রে কোনো ট্রানজেকশান নিয়ে গ্রাহকের আপত্তি থাকলে সেটি আটকে যেতে পারে। পেমেন্ট গেটওয়ে কোম্পানীগুলো অনেক সময় অনলাইনেই আপনার যাবতীয় লেনদেন এর রিপোর্ট দেখার সুযোগ আপনাকে করে দিয়ে থাকে।
নিরাপত্তার স্বার্থে

আপনি অবশ্যই কাস্টমারের কাছে থেকে পাসপোর্ট আথবা ড্রাইভিং লাইচেন্স আথবা ন্যাশনাল আইডি কার্ড কপি আপনার কোম্পনির আফিসিয়াল ইমেইল নিয়ে রাখবেন এই দুটো বিষয় খেয়াল রাখলে আপনি সবসময় নিরাপদ এই ডকুমেন্ট গুলো আপনি অবশ্যই ১২০ দিন পর্যন্ত আপনার কাছে নিরাপদে রাখবেন কেননা কাস্টমার ১২০ দিন পর্যন্ত টাকা তার ব্যাংক কাছে ক্লেইম করতে পারে। এই ডকুমেন্ট আপানার কাছে থাকলে কাস্টমার ক্লেইম করলেও আপনি নিরাপদ থাকবেন। মনে রাখবেন আপনার কার্ড  বা অনলাইন একাউন্টের তথ্য শেয়ার করতে সাবধানী হবেন। 

ফান্ড প্রসেস
আপনি যদি কোন পেমেন্ট রিফান্ড দিতে চান তাহলে আপনার প্যানেল সেই অপশন আছে। অথবা আপনি আপানার অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে কো¤পানি কে মেইল এর মাধামে জানাতে পারেন আপনি টাকা রিফান্ড দিতে চাচ্ছেন আপনি চাইলে পারসিয়াল রিফান্ডও করতে পারনে

বাংলাদেশে অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান কিংবা কোনো ব্যাংক থেকে সরাসরি সেবা নিতে পারে। 

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top