ডিজিটাল মার্কেটিং এবং ক্রিয়েটিভিটি – পর্ব ০২

ডিজিটাল মার্কেটিং এবং ক্রিয়েটিভিটি – পর্ব ০২

 

ই-মেইল মার্কেটিং (E-mail Marketing) 

ই-মেইলের মাধ্যমে কোনাে পণ্য বা সার্ভিসের প্রচার চালানােকে ই-মেইল মার্কেটিং বলা হয়। সােশ্যাল মিডিয়া আসার আগে থেকে আমরা কমবেশি নেটিজেনেরা এর সাথে পরিচিত। ই-মেইলে বিজ্ঞাপনে সাকসেস রেট কম হলেও কম খরচ এবং সহজসাধ্য বলে এর জনপ্রিয়তা আজো কমেনি। আরাে সুবিধা হলাে, একটা ই-মেইল মেসেজে যেভাবে বিস্তারিত বিজ্ঞাপন দেয়া যায়। তেমনটা আর কোনাে মাধ্যমে দেয়া যায় না। ছবি থেকে ভিডিও, লেখা কিংবা অডিও, ইমেজ কিংবা লিংক সবই দেয়া যায়। বর্তমানে শুধু পণ্যের প্রসার নয়, একসময়ের অফিসিয়াল মেইল বা চিঠিপত্রের জায়গা করে নিয়েছে আজকের ই-মেইল । ই-মেইল মার্কেটিং বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয় ও বহুল ব্যবহৃত একটি ডিজিটাল মার্কেটিং ফর্ম এবং সৃজনশীলতা এখানে খুব জরুরি, যদি প্রাপকের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে হয় ।

অ্যাফিলিয়েটেড মার্কেটিং (Affiliated Marketing) 

উৎপাদক বা ভােক্তা না হয়ে শুধু তৃতীয় পক্ষ হিসেবে কোনাে পণ্য বা সেবার সরাসরি বিক্রিতে সাহায্য করে অর্থ উপার্জনের জন্য যে প্রচার চালানো হয়, তাকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং (Affiliate Marketing) বলে । এটা আসলে মধ্যস্থতাকারী মার্কেটারের দিক থেকে। প্রতিষ্ঠান বা উদ্যোক্তার দিক থেকে বলতে গেলে বলতে হয়, যখন কোনাে পণ্য বা সেবা মার্কেটিং ও সেলসের জন্য ততীয় কোনাে স্বাধীন পেশাজীবীর সাহায্য নেয়া হয় তখন সেটা অ্যাফিলিয়েটেড মার্কেটিং। এ ধরনের মার্কেটিং বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিভিন্নভাবে প্রচলিত থাকলেও এই শব্দটি কেবল অনলাইনে যারা তৃতীয় পক্ষ হিসেবে মার্কেটারের কাজ করেন, তাদের জন্য ব্যবহার করা হয়। বিশ্বজুড়ে দেখা যায় আমাজন বা আলিবাবার মতাে ই-কমার্স সাইটগুলাের পণ্য ও সার্ভিসের ক্ষেত্রে এ মার্কেটিংয়ের বহুল ব্যবহার রয়েছে। অন্যান্য ব্যক্তিগত দক্ষতার মতাে সৃজনশীলতা ব্যবহারের সুযােগ এখানে ব্যাপক।

মােবাইল বা ফোন মার্কেটিং (Phone Marketing)

মােবাইল ফোন টেকনােলজি যত উন্নত হচ্ছে, তত এর বহুমুখী ব্যবহার বেড়ে চলেছে। তেমনিভাবে সে সুযােগ নিচ্ছে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলাে। আসলে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান থেকে যদি বিজ্ঞাপন না নিত, তাহলে আমরা মােবাইলে ফোনের বিভিন্ন অ্যাপ বিনামূল্যে ব্যবহার করতে পারতাম না। কারণ আমরা। ইন্টারনেটের বিল দিলেও সাইটটি ব্যবহারের জন্য আলাদা কোনাে সার্ভিস চার্জ দিই না। সেটা ফেসবুক, ইউটিউব, ইমাে সবক্ষেত্রেই। মােবাইল অ্যাপের মাধ্যমে পণ্য বা সার্ভিসের প্রচার চালানােকে মােবাইল মার্কেটিং বলে। উল্লেখ্য, উপরের সব ধরনের মার্কেটিং মােবাইলের বেলায়ও প্রযােজ্য। এছাড়া এসএমএস ও ভয়েস ওভার পাঠিয়েও মােবাইল মার্কেটিং চালানাে সম্ভব। মূলত অফার ডিজাইন ও বার্তা তৈরিতে এখানে সৃজনশীল ও দক্ষ হওয়া দরকার।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top